আওয়ার বিডি ২৪: বর্তমান সৌদির আরবের ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মাদ বিন সালমান ই তার সমালোচনাকারী ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক মুহাম্মাদ জামাল খাশোগিকে হত্যার আদেশ দিয়েছিলেন বলে বিবৃতি প্রদান করেছেন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা বাহিনী সি আই এ।

তবে সৌদি আরবের সরকার এ ঘটনায় প্রিন্স সালমানের জড়িত না থাকার কথাই বলেছে বারবার। একজন মার্কিন কর্মকর্তা শুক্রবার সি এন এন নিউজ কে বলেন, তুর্কি সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া অডিও রেকর্ডিং এবং বিভিন্ন প্রমাণাদি এবং মার্কিন গোয়েন্দা বাহিনীর কর্মকর্তাদের তথ্যের ওপর নির্ভর করে তারা এই সিদ্ধান্তে পৌছঁছেন।

তিনি জানিয়েছেন, তদন্তকর্মকর্তারা দৃঢ়ভাবে এই বিশ্বাস করেন যে, সাংবাদিক মুহাম্মাদ জামাল খাশোগিকে হত্যার মতো এমন একটি অপারেশন ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মাদ বিন সালমানের অনুমতি ছাড়া হয়নি।

এদিকে বৃহস্পতিবার সৌদি আরবের পাবলিক প্রসিকিউটরের কার্যালয় থেকে জানিয়েছিল যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান নন তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

ওই তথ্য অনুযায়ী হত্যার নির্দেশদাতা গোয়েন্দা কর্মকর্তা কে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছিল সাংবাদিক মুহাম্মাদ জামাল খাশোগিকে বুঝিয়ে শুনিয়ে সৌদি আরবে ফিরিয়ে আনার জন। কিন্তু ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা  তা না করে জামাল খাশোগিকে হত্যা করে ফেলেন।

উল্লেখ্য যে, সাংবাদিক জামাল খাশোগি সৌদি রাজপরিবারের বিরুদ্ধবাদী সমালোচক ছিলেন। গত ২ ই অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরের ভেতরে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের করার পর আর কোন খোজ পাওয়া যায়নি।

সাংবাদিক মুহাম্মাদ জামাল খাশোগি তার বিয়ের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তুলতে সৌদি কনস্যুলেটে যাওয়ার পর সেখানে তাকে নিহত করে তার মরদেহ লুকিয়ে ফেলা হয়। এখনও তার মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।