মেয়েদেরকে বলতেছি……….
আচ্ছা তোমাদের কি লজ্জা করেনা ??

তোমার বয়ফ্রেন্ডের সাথে অবাধ মেলামেশা
করো, বাসায় ফিরে সেই নষ্ট শরীর নিয়ে
নিজের মা-বাবার সামনে দাঁড়াও ঘন্টার পর ঘন্টা আবাসিক হোটেলে অথবা বন্ধুর বাসায় মেলামেশায় ব্যস্থ এবং কোন কারণে ব্রেকাপ হওয়ার পর অবশেষে অপরিচিত একজনের সাথে যখন সেজে গুজে বিয়ের পিড়িতে বসো !!
.
তখন একবারও কি লজ্জা লাগেনা, একবারও কি ভাবোনা, আমি কেন এত সাজুগুজু করছি, কি আছে আমার
কাছে, আমি তো চরিত্রহীনা, আমি তো আমার স্বামীর হক নস্ট করে ফেলেছি, আমি তো তাকে ঠকিয়ে ফেলতেছি !!
.
একবারও কি মনে হয় না, কিসের এত
আয়োজন ??
.
এই নস্ট শরীরটাকে লাল কাপড়ে পেচিয়ে, সোনার হার/ বালা/ কানের দুল পরে এবং শরীরের উচুভূমিকে জোর করে সমতল
ভূমি বানিয়ে বিয়ের আসর পার করে দিলেই কি তুমি নিজেকে সতী মেয়ে প্রমাণ করে
ফেলছো !! . .
.
জানি তখন তোমার বিবেকে নাড়া দিবে, তুমি চোখের জল ফেলবে এবং বলবে যে কেন আগে এসব করলাম ।
.
হয়তো স্বামীর কাছে অস্বীকার করে পার পেয়ে যাবে, হয়তো তোমার স্বামী সব বুঝেও কিছু জিজ্ঞেস করবে না,
কারণ স্বামী মেনে নিতে বাধ্য, কিন্তু সারাটি জীবন তো কলংকের দাগ থেকেই যাবে !! . .
.
তাইতো বলছি,
নিজের সতীত্বের সম্মান দিতে শিখো, সামান্য একটা বয়ফ্রেন্ডের দু চারটা মিস্টি কথা শুনে যে সব বিলিয়ে দিতে হবে এমন তো নয় !!
.
নিজের মনকে শক্ত করো, আল্লাহ কে ভয়
করো !! . .
.
মেয়েদের জীবন বড়ই কঠিন !!
.
সতীত্ব ঠিক রাখা সেই কঠিন জীবনের সবচেয়ে কঠিন কাজ !!
.
তাইতো বলিতেছি………. ভাবিয়া করিও কাজ, করিয়া ভাবিওনা !